২২০ কেজি থেকে ৬৫ কেজি: আদনান সামি যেভাবে ফিট

গত কয়েকদিন ধরে আদনান সামির লাশের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরছে। ছবিটি দেখে অবাক হয়েছেন অনেকেই। সেই মোটা, নিটোল চেহারার আদনান সামি, যার ওজন ২২০ কেজি, মেদ হারিয়ে এত ফিট হলেন কীভাবে?

স্থূলতা এখন সারা দেশে মাথাব্যথার কারণ। মেদ ঝরিয়ে সুস্থ ও সুস্থ থাকার রেওয়াজ। তাই সেই পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত নেন বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক আদনান সামি এবং ওজন কমাতে যুদ্ধে নামেন। অনুশীলন শুরু হয়েছিল ২০০ কেজি থেকে। ১৫৫ কেজি ওজন কমানো আদনান এখন শান্ত, প্রায় নির্দয়। কেমন ছিল আদনানের যাত্রা?

শুরুতে ব্যায়াম করতে পারেননি এই সঙ্গীতশিল্পী। কারণ সে এতটাই মোটা ছিল যে সে কোনোভাবেই বাঁকতে পারত না। ফলে তার খাদ্যাভ্যাস নিয়ন্ত্রণ করে অনেক ওজন কমাতে হয়েছে তাকে। তিনি সাদা ভাত, রুটি, চিনি এবং জাঙ্ক ফুড সম্পূর্ণরূপে খাওয়া বন্ধ করে দেন।

আদনানের পুষ্টিবিদ বলেন, আদনান একজন ‘ইমোশনাল ইটার’ ছিলেন। তার খাদ্যাভ্যাস নির্ভর করে তার মন খারাপ ছিল কি না তার উপর। তিনি তাড়াহুড়ো করে প্রচুর চিনিযুক্ত ও চিনিযুক্ত খাবার খেতেন। তার পরে অবশ্য বিষয়টি নিয়ে আফসোস করতেন। এটি যাতে না ঘটে তার জন্য পুষ্টিবিদকে সঙ্গ দিতেন আদনান।

চিনি ছাড়া এক কাপ চা দিয়ে শুরু হতো আদনানের দিন। দুপুরে, মেনুতে ১ টেবিল চামচ চর্বিমুক্ত সালাদ ড্রেসিং, উদ্ভিজ্জ সালাদ এবং মাছ ছিল। রাতের খাবারে সেদ্ধ ডাল বা মুরগির মাংস খেতেন। খাবারের তালিকায় ভাত বা রুটি ছিল না। সন্ধ্যায় তিনি বাড়িতে তৈরি পপকর্ন খেয়েছেন, যেখানে মাখন বা লবণ ছিল না।

 প্রায় ৪০ কেজি ওজন কমানোর পর একজন ডায়েটিশিয়ানের পরামর্শে ব্যায়াম শুরু করেন আদনান। শুরুতে তিনি কিছুক্ষণ ট্রেডমিলে দৌড়াতেন। সঙ্গে হালকা ব্যায়াম। কয়েক মাস পর আটঘাট বেঁধে শারীরিক কসরত শুরু হয়। সপ্তাহে ৬ দিন কার্ডিও ব্যায়াম করতেন এই শিল্পী। এরপর দ্রুত ওজন কমতে থাকে। সেই সময়ে তিনি প্রতি মাসে প্রায় ১০ কেজি ওজন কমাতেন। ব্যায়াম শুরু করার পর খুবই উচ্ছ্বসিত আদনান বলেন, এখন তিনি আগের চেয়ে অনেক সুস্থ বোধ করছেন। অনেকক্ষণ দৌড়াতে পারেন, রাতে ঘুমও হয় ভালো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *